POLICY REGARDING RE-FINANCE SCHEME OF TK. 200 CRORE FOR JUTE SECTOR ARRANGED BY BANGLADESH BANK. REF: BRPD CIRCULAR NO. 11 DATED 09.06.2014.

বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালক পর্ষদের ৩৫১ তম সভার অনুমোদনক্রমে পাট খাতে সহায়তা প্রদানের জন্য বিশেষ করে কৃষকদের নিকট থেকে পাট ক্রয়ের নিমিত্তে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক অনধিক ২০০ (দুইশত) কোটি টাকার একটি পুনঃঅর্থায়ন স্কীম (Refinance Scheme) গঠন করা হয়েছে। উক্ত পুনঃঅর্থায়ন স্কীম পরিচালনায় নিম্নোরূপ নীতিমালা অনুসৃত হবেঃ-

(ক) সূচনাঃ

  1. এ স্কীমের নাম হবে ‘‘পাট খাতে সহায়তা প্রদানে গঠিত পুনঃঅর্থায়ন স্কীম”;
  2. প্রস্তাবিত পুনঃঅর্থায়ন তহবিল রপ্তানীর সাথে জড়িত/সংশ্লিষ্ট সকল পাটকল/পাট ব্যবসায়ীদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে এবং সরকারী পাটকলগুলোর জন্য তহবিলের ৪০ শতাংশ, বেসরকারী পাটকলগুলোর জন্য ৪০ শতাংশ এবং কাঁচা পাট ব্যবসায়ী/রপ্তানিকারকদের জন্য ২০ শতাংশ নির্ধারিত রাখা হবে। সরকারী পাটকলগুলোর জন্য তহবিলের নির্ধারিত ৪০ শতাংশ এর সম্পূর্ণ/আংশিক ব্যবহৃত না হলে তা বেসরকারী পাটকলগুলোর জন্য বরাদ্দ করা হবে;

iii. বাংলাদেশ ব্যাংক এর সাথে স্বাক্ষরিত সমঝোতা স্মারকের আওতায় তফসিলী ব্যাংকগুলো এ স্কীমের আওতায় পুনঃঅর্থায়ন সুবিধা গ্রহণ করবে;

  1. এ তহবিলের সামগ্রিক তদারকি/পরিচালনা/ব্যবস্থাপনার কাজ বাংলাদেশ ব্যাংক এর কৃষি ঋণ ও আর্থিক সেবাভুক্তি বিভাগ কর্তৃক সম্পাদিত হবে।

(খ) ঋণের মেয়াদঃ

  1. নবায়ন/আবর্তনযোগ্য (revolving) এ স্কীমের মেয়াদ হবে ৫ বছর।

(গ) ঋণ প্রাপ্তির যোগ্যতাঃ

  1. রপ্তানির সাথে জড়িত/সংশ্লিষ্ট সকল পাটকল/পাট ব্যবসায়ীদের জন্য এ তহবিল উন্মুক্ত থাকবে। কৃষকদের নিকট থেকে পাটক্রয় বাবদ ঋণ প্রদান ব্যতিত ব্যাংকগুলো কর্তৃক অন্য কোন উদ্দেশ্যে এ স্কীমের অর্থ উত্তোলনের সুযোগ থাকবে না;
  2. ঋণ বিতরণের বিষয়টি ব্যাংক বিদ্যমান বিধি-বিধান অনুসরণপূর্বক ব্যাংকার-গ্রাহক সম্পর্কের আলোকে কেস-টু-কেস ভিত্তিতে বিবেচনা করবে।

(ঘ) ঋণের সুদের হারঃ

  1. এ স্কীমের আওতায় গ্রাহক পর্যায়ে প্রযোজ্য সুদের হার হবে ব্যাংক রেট (বর্তমানে ৫%) + সর্বোচ্চ ৪%। তবে ঋণগ্রহীতা নির্ধারিত সময়ে ঋণ পরিশোধে ব্যর্থ হলে অনাদায়ী পরিমাণের জন্য উল্লেখিত হারের পরিবর্তে এ খাতে ব্যাংকের নিয়মিত সুদ হার (বাণিজ্যিক হার) আরোপ করা যাবে;
  2. বাংলাদেশ ব্যাংক হতে ব্যাংকগুলো কতৃর্ক গৃহীত পুনঃঅর্থায়ন সুবিধার উপর প্রচলিত ব্যাংক রেটে (যা সময়ে সময়ে পরিবর্তিত হতে পারে) সুদ আরোপ করা হবে।

(ঙ) ঋণের জন্য আবেদনের পদ্ধতিঃ

  1. সংশ্লিষ্ট ব্যাংক গ্রাহক পর্যায়ে ঋণ বিতরণ করে নিম্নোক্ত প্রয়োজনীয় তথ্য/কাগজপত্রসহ নির্ধারিত ছকে মহাব্যবস্থাপক, কৃষি ঋণ ও আর্থিক সেবাভুক্তি বিভাগ, বাংলাদেশ ব্যাংক এর নিকট পুনঃঅর্থসংস্থান দাবী দাখিল করবেঃ
  • প্রকৃত বিতরণ সংক্রান্ত সনদপত্র;

  • এ খাতে ঋণ বিতরণের সমন্বিত বিবরণী;

  • আবেদনকৃত অর্থ সুদসহ পরিশোধের ব্যাপারে প্রতিশ্রুতিপত্র (ডিপি নোট) ও লেটার অব কনটিনিউটি;

  • প্রয়োজনীয় নিয়মানুযায়ী অন্যান্য কাগজাদি।

(চ) পরিশোধসূচী ও আদায়ঃ

  1. প্রতি ত্রৈমাসিকে সুদাসলের নির্দিষ্ট হারে পরিশোধ/সমন্বিত হওয়া সাপেক্ষে ব্যাংক এক বছর মেয়াদের জন্য পাট ও পাট পণ্য রপ্তানীর কৃষকদের নিকট হতে পাটক্রয় বাবদ পাটকল/পাট ব্যবসায়ীদের ঋণ প্রদান করবে এবং প্রতি বছর সমুদয় বকেয়া (সুদ ও আসল) পরিশোধিত/সমন্বিত হওয়া সাপেক্ষে নির্ধারিত মেয়াদ (৫ বছর) এর মধ্যে বাৎসরিক ভিত্তিতে নবায়ন করা যাবে;
  2. তহবিলের মেয়াদ পূর্তির পর সুদসহ (ত্রৈমাসিক চক্রবৃদ্ধি হারে) গৃহীত আসলের সমুদয় অর্থ বাংলাদেশ ব্যাংককে পরিশোধ করতে হবে। এছাড়া মেয়াদপূর্তির আগেই যেসকল ঋণ হিসাব পরিশোধ/সমন্বিত হবে সেসকল ঋণ সমন্বয় পরবর্তী ১ মাসের মধ্যে সুদাসলে বাংলাদেশ ব্যাংককে পরিশোধ করতে হবে;

iii. ঋণের বকেয়া নির্ধারিত তারিখের মধ্যে পরিশোধিত না হলে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাথে রক্ষিত সাধারণ হিসাব ডেবিট করে তা আদায়/সমন্বয় করা হবে;

  1. গ্রাহক পর্যায়ে বিতরণকৃত ঋণ আদায়ের সকল দায়-দায়িত্ব ঋণ বিতরণকারী ব্যাংকের ওপর ন্যস্ত থাকবে। গ্রাহক পর্যায়ে ঋণ আদায়ের সাথে ব্যাংলাদেশ ব্যাংকের পাওনাকে সম্পর্কিত করা যাবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *