Prudential Regulations for Consumer Financing (Regulation for House finance). Ref: BRPD Circular Letter No. 25 dated 19-Nov-2019.

Prudential Regulations for Consumer Financing (Regulation for House finance)

Please refer to Regulation 23 of Prudential Regulations for Consumer Financing, circulated vide BRPD Circular No. 07, dated November 03, 2004 and BRPD Circular No. 01, dated January 01, 2015.

02. Considering the price hike of construction materials for housing/real estate and in the context of growing higher middle class group, rising per capita income and increasing demand for housing, it has been decided to amend the Regulation 23 of Prudential Regulations for Consumer Financing which will now stands as under:

Regulation-23:

‘‘The maximum per party limit in respect of housing finance by the banks will be Tk.20 (Twenty) million. The housing finance facility shall be provided at a maximum debt equity ratio of 70:30. ”

The above amendments shall be made effective immediately.

Source: https://www.bb.org.bd/mediaroom/circulars/brpd/nov192019brpdl25e.pdf

Special Policy on Loan Rescheduling and One Time Exit. Ref: BRPD Circular Letter No. 24 dated 17-Nov-2019.

Source: https://www.bb.org.bd/mediaroom/circulars/brpd/nov172019brpdl24.pdf

Special Policy on Loan Rescheduling and One Time Exit. Ref: BRPD Circular Letter No. 23 dated 23-Oct-2019.

ঋণ পুনঃতফসিল ও এককালীন এক্সিট সংর্কান্ত বিশেষ নীতিমালা।

উপযুর্ক্ত বিষয়ে বিআরপিডি সার্কুলার নং-০৫, তারিখঃ মে ১৬, ২০১৯ ও বিআরপিডি সার্কুলার লেটার নং-১৯, তারিখঃ সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৯ এর প্রতি আপনাদের দৃষ্টি আকষর্ণ করা যাচ্ছে।

বিআরপিডি সার্কুলার লেটার নং-১৯/২০১৯ এর মাধ্যমে বিআরপিডি সার্কুলার নং-০৫/২০১৯ এর আওতায় ঋণগ্রহিতা কতৃর্ক আবেদনপত্র দাখিলের সময়সীমা অক্টোবর ২০, ২০১৯ তারিখ পযর্ন্ত বৃদ্ধি করা হয়। বিগত অক্টোবর ২০, ২০১৯ তারিখে মহামান্য সুপ্রীম কোর্টের হাই কোর্ট ডিভিশন বিআরপিডি সার্কুলার নং-০৫/২০১৯ এর কার্যকারিতা আরও এক মাস অথবা রীট পিটিশন নিষ্পত্তির তারিখ (যেটি আগে আসবে) পর্যন্ত বৃদ্ধি করার আদেশ প্রদান করেছেন।

এক্ষণে, মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের হাই কোর্ট ডিভিশন কতৃর্ক প্রদত্ত আদেশ বর আলোকে বিআরপিডি সার্কুলার নং-০৫/২০১৯ এর আওতায় ইতোপূর্বে গৃহীত আবেদনসমূহের বিষয়ে নভেম্বর ১৯, ২০১৯ তারিখ অথবা রীট পিটিশন নিষ্পত্তির তারিখ (যেটি আগে আসবে) এর মধ্যে উক্ত সার্কুলার মোতাবেক কাযক্রম গ্রহণ করা যাবে। তবে, বিআরপিডি সার্কুলার লেটার নং-১৯/২০১৯ এর মাধ্যমে প্রদত্ত সময়সীমা অর্থাৎ অক্টোবর ২০, ২০১৯ তারিখ অতিক্রান্ত হওয়ায় নতুন করে আর কোন আবেদনপত্র র্গহণ করা যাবে না। বতদব্য্তীত, ɛদত্ত আদেশ ধনুযায়ী উক্ত সময়ে বিআরপিডি সার্কুলার নং-০৫/২০১৯ এর আড়তায় পুনঃতফসিল/ বককালীন এক্সিট সুবিধা প্রাপ্ত ঋণর্গহিতাদের ধনুকূলে কোন নতুন ঋণ সুবিধা প্রদান করা যাবে না।

এ নির্দেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে।

Source: https://www.bb.org.bd/mediaroom/circulars/brpd/oct232019brpdl23.pdf

Submission of EOI for establishment of Food Processing & Agro-based and ICT Projects under Entrepreneurship Support Fund (ESF) Loan. Ref: EEF Circular No. 03 dated 30-Sep-2019.

Source: https://www.bb.org.bd/mediaroom/circulars/eef/sep302019eef03b.pdf

Revised guidelines for refinance scheme on Milk Production and Artificial Insemination. Ref: ACD Circular Letter No. 01 dated 28-Oct-2018.

Source: https://www.bb.org.bd/mediaroom/circulars/acd/oct282018acdl01.pdf

GUIDELINES ON CREDIT CARD OPERATIONS OF BANKS. REF: BRPD CIRCULAR NO. 07 DATED 11.05.2017.

Guidelines on Credit Card Operations of Banks পরিপালন প্রসঙ্গে।

পণ্য ও সেবা μয়ের পর মূল্য পরিশোধে μেডিট কার্ডের ব্যবহার সুবিধাজনক হওয়ায় এর প্রচলন μমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ব্যাংকসমূহের μেডিট কার্ড ব্যবসার স্বচ্ছ ও সুষ্ঠু পরিচালনা এবং সম্পৃক্ত ঝুঁকিসমূহ আরও কার্যকর ও ফলপ্রসূভাবে মোকাবেলা করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক এবং কতিপয় তফসিলি ব্যাংক ও সংশ্লিষ্ট স্টেকহোল্ডারদের মতামতের ভিত্তিতে প্রণীত Guidelines on Credit Card Operations of Banks এতদ্্সঙ্গে সংযোজন করা হলো।

μেডিট কার্ড ব্যবসা পরিচালনার ক্ষেত্রে গাইডলাইন্সটি যথাযথভাবে অনুসরণ/পরিপালন করার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশনা প্রদান করা হলো।

এ নির্দেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে।

Source: https://www.bb.org.bd/mediaroom/circulars/brpd/may112017brpd07.pdf

REFINANCE SCHEME ON MILK PRODUCTION AND ARTIFICIAL INSEMINATION SECTOR. REF: ACD CIRCULAR LETTER NO. 03 DATED 18.08.2016.

শিরোনামোক্ত বিষয়ে এসিএফআইডি সার্কুলার নং – ০২ তারিখঃ ০২/০৬/২০১৫ এর প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করা যাচ্ছে। উক্ত সার্কুলার এর ৮(খ) নং অনুচ্ছেদটি নিম্নলিখিত অনুচ্ছেদ দ্বারা প্রতিস্থাপিত হবে।

“উক্ত ঋণের জন্য প্রযোজ্য বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক জারীকৃত বর্তমানে অনুসৃত অন্যান্য নীতিমালা যেমন আবেদনপত্র গ্রহণ ও প্রক্রিয়াকরণের সময়কাল, ঋণ গ্রহীতার যোগ্যতা নিরূপন, পাস বইয়ের ব্যবহার, ঋণ বিতরণ, ঋণের সদ্ব্যবহার, তদারকি ও আদায় প্রক্রিয়া যথারীতি অনুসৃত হবে। তবে ঋণ প্রদানের ক্ষেত্রে কোনরূপ সহায়ক জামানত গ্রহণ করা যাবে না।”

এ সংক্রান্ত ০২/০৬/২০১৫ তারিখের এসিএফআইডি সার্কুলার নং – ০২ এবং ২৫/০৮/২০১৫ তারিখের এসিডি সার্কুলার লেটার নং-০৩ এর অন্যান্য নির্দেশাবলী অপরিবর্তিত থাকবে।

এ নির্দেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে।

Source: https://www.bb.org.bd/mediaroom/circulars/acd/aug182016acdl03.pdf

AGRICULTURAL & RURAL CREDIT POLICY & PROGRAM FOR THE FY 2016-17. REF: ACD CIRCULAR NO. 01 DATED 31.07.2016.

২০১৬-১৭ অর্থ বছরের কৃষি ও পল্লী ঋণ নীতিমালা ও কর্মসূচি প্রণয়ন করা হয়েছে, যা এতদ্সঙ্গে সংযোজিত হলো।

উক্ত নীতিমালা ও কর্মসূচি অনুসরণ ও বাস্তবায়নের জন্য সংশ্লিষ্টদেরকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করে স্ব-স্ব ব্যাংক ও প্রতিষ্ঠানসমূহের নির্ধারিত ঋণ বিতরণ লক্ষ্যমাত্রার আওতায় খাত/উপ-খাত ভিত্তিক শাখাওয়ারী ও প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ক্ষুদ্র ঋণ প্রতিষ্ঠান (MFI) ভিত্তিক ঋণ বিতরণ লক্ষ্যমাত্রার বিস্তারিত আগামী ২০ আগস্ট, ২০১6 তারিখের মধ্যে অত্র বিভাগকে অবহিত করার জন্য পরামর্শ প্রদান করা যাচ্ছে।

এ নীতিমালা ও কর্মসূচি ১ জুলাই, ২০১6 তারিখ থেকে কার্যকর বলে গণ্য হবে।

Source: https://www.bb.org.bd/mediaroom/circulars/acd/jul312016acd01.pdf

AGRICULTURAL CREDIT DISBURSEMENT THROUGH AGENT BOOTH. REF: ACD CIRCULAR NO. 02 DATED 31.07.2016.

আপনারা অবগত আছেন যে, বিগত ০৯ ডিসেম্বর ২০১৩ তারিখে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক এজেন্ট ব্যাংকিং গাইডলাইন্স প্রবর্তন করা হয়েছে। অন্যান্য ব্যাংকিং সুবিধা প্রদানের পাশাপাশি দেশের সর্বত্র কৃষি ঋণ কার্যক্রম অধিকতর সম্প্রসারিত করার লক্ষ্যে এজেন্ট ব্যাংকিং ব্যবস্থা সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারে। সে প্রেক্ষিতে, যে সকল বাণিজ্যিক ব্যাংকে এজেন্ট ব্যাংকিং কার্যক্রম চালু আছে এবং যে সকল বাণিজ্যিক ব্যাংক এজেন্ট ব্যাংকিং কার্যক্রম গ্রহণ করতে ইচ্ছুক সে সকল ব্যাংক চলমান কৃষি ঋণ বিতরণ পদ্ধতির পাশাপাশি এজেন্ট ব্যাংকিং এর মাধ্যমে কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণ কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করতে পারবে।

এক্ষেত্রে, ব্যাংকসমূহকে নি¤œরূপ কার্যক্রম গ্রহণ করতে হবেঃ

ক) বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক প্রণীত “গাইডলাইন্স অন এজেন্ট ব্যাংকিং ফর দা ব্যাংকস”-এ বর্ণিত নীতিমালা অনুসারে এবং বাংলাদেশ ব্যাংক হতে এজেন্ট ব্যাংকিং কার্যক্রমের অনুমতিপ্রাপ্ত ব্যাংকসমূহ এজেন্ট ব্যাংকিং ব্যবস্থায় কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণ করতে পারবে। এক্ষেত্রে, এজেন্ট বুথের মাধ্যমে ঋণের আবেদনপত্র গ্রহণ, প্রাথমিকভাবে যাচাইবাছাইকরণ, কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণ এবং ঋণগ্রহীতার নিকট থেকে ঋণের কিস্তি আদায় করা যাবে। তবে, ঋণের আবেদন প্রক্রিয়াকরণ, ঋণ মঞ্জুরি এবং ঋণের প্রয়োজনীয় তদারকি ব্যাংক কর্তৃক সম্পন্ন করতে হবে।

খ) বাংলাদেশ ব্যাংকের কৃষি ও পল্লী ঋণ নীতিমালা ও কর্মসূচির আওতাভূক্ত খাত/উপখাতসমূহে এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণ করা যাবে। এক্ষেত্রে, এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণসহ সামগ্রিকভাবে ব্যাংকের বার্ষিক লক্ষ্যমাত্রার ৬০ শতাংশ শস্য/ফসল খাতে বিতরণের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সকল ব্যাংককে সচেষ্ট থাকতে হবে।

গ) এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণের ক্ষেত্রে প্রতি অর্থবছরের শুরুতে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক জারীকৃত কৃষি ও পল্লী ঋণ নীতিমালা ও কর্মসূচিতে উল্লিখিত ঋণ নিয়মাচার এবং অন্যান্য নীতিমালা প্রযোজ্য হবে।

ঘ) এজেন্ট ব্যাংকিং ব্যবস্থায় কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংকের কৃষি ও পল্লী ঋণ নীতিমালা ও কর্মসূচির আলোকে সংশ্লিষ্ট ব্যাংক কর্তৃক নির্ধারিত সুদহারের সর্বোচ্চ সীমা প্রযোজ্য হবে। ঋণ বিতরণে বাৎসরিক ভিত্তিতে অথবা ঋণের মেয়াদান্তে (যে সকল ঋণের মেয়াদ ১২ মাসের অধিক নয়) এবং কিস্তিতে আদায়ের ক্ষেত্রে ক্রমহ্রাসমান হার পদ্ধতিতে সুদ আরোপ করা যেতে পারে।

ঙ) এজেন্টদের কমিশন বা সার্ভিস চার্জ বাবদ গ্রাহকের নিকট হতে নির্ধারিত সুদহারের অতিরিক্ত সর্বোচ্চ ০.৫০% সার্ভিস চার্জ (ভ্যাট সহ) আদায় করা যাবে। এছাড়া, কোন উপায়ে গ্রাহকের নিকট হতে উক্ত সার্ভিস চার্জ ব্যতীত অন্য কোনরূপ ফি/চার্জ আদায় করা যাবে না এবং এই সার্ভিস চার্জ ব্যাংক কর্তৃক কর্তনের মাধ্যমে এজেন্টের হিসাবে প্রদান করতে হবে অর্থাৎ এজেন্ট সরাসরি ঋণগ্রহীতার নিকট থেকে কোন সার্ভিস চার্জ আদায় করতে পারবে না।

চ) ঋণ গ্রহীতা কৃষক/ গ্রাহকগণের প্রয়োজনীয় তথ্যাবলী ও হিসাব বিবরণী সংশ্লিষ্ট এজেন্ট ও ব্যাংক কর্তৃক সংরক্ষণ করতে হবে এবং চাহিদামত সংশ্লিষ্ট ব্যাংককে তা বাংলাদেশ ব্যাংকে প্রেরণ করতে হবে।

ছ) এজেন্ট ব্যাংকিং ব্যবস্থায় কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণের বিবরণী ক্সত্রমাসিক ভিত্তিতে “পরিশিষ্ট-ক” (কপি সংযুক্ত) মোতাবেক প্রতি ক্সত্রমাসের তথ্যাদি পরবর্তী মাসের ১০ তারিখের মধ্যে সংশ্লিষ্ট ব্যাংক কর্তৃক বাংলাদেশ ব্যাংকের কৃষি ঋণ বিভাগে দাখিল করতে হবে।

জ) বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক যে কোন সময় ব্যাংকসমূহের এজেন্ট ব্যাংকিং ব্যবস্থায় কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণ কার্যক্রম সরেজমিনে পরিদর্শনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ঝ) কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণকারী সংশ্লিষ্ট ব্যাংককেই এজেন্ট ব্যাংকিং ব্যবস্থায় কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণের ক্ষেত্রে প্রকৃত কৃষক পর্যায়ে ঋণ পৌঁছানোর বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক জারীকৃত কৃষি ও পল্লী ঋণ নীতিমালা ও কর্মসূচি অনুসারে এবং কৃষক পর্যায়ে ঋণ বিতরণ হবার পরই কেবলমাত্র তা সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের কৃষি ও পল্লী ঋণ বিতরণ হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংকের নিকট বিবেচিত হবে।

এ নির্দেশনা অবিলম্বে কার্যকর হবে।

Source: https://www.bb.org.bd/mediaroom/circulars/acd/jul312016acd01.pdf