AMENDMENT OF BANK-COMPANY ACT, 1991. REF: BRPD CIRCULAR LETTER NO. 10 DATED 04.10.2015.

জনস্বার্থ সংস্থাসমূহের ফাইনান্সিয়াল রিপোর্টিং কার্যক্রমকে একটি সুনিয়ন্ত্রিত কাঠামোর আওতায় আনয়নের লক্ষ্যে প্রণীত ফাইনান্সিয়াল রিপোর্টিং আইন, ২০১৫ (২০১৫ সনের ১৬ নং আইন) ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে কার্যকর হয়েছে এবং একই তারিখের বাংলাদেশ গেজেট অতিরিক্ত সংখ্যায় প্রকাশিত হয়েছে। উক্ত আইনের ৬০ ধারাবলে ব্যাংক-কোম্পানী আইন, ১৯৯১ এর ধারা ৩৮-এ দু’টি নূতন উপ-ধারা সংযোজন করা হয়েছে। নূতন উপ-ধারাদ্বয়ের নির্দেশনা সংশ্লিষ্ট সকলের অবগতি ও পরিপালন নিশ্চিত করণার্থে ফাইনান্সিয়াল রিপোর্টিং আইন, ২০১৫ এর ধারা ৬০ এর ভাষ্য নি¤েœ হুবহু মুদ্রিত হলোঃ

৬০। ১৯৯১ সনের ১৪ নং আইনের সংশোধন। ব্যাংক কোম্পানী আইন, ১৯৯১ (১৯৯১ সনের ১৪ নং আইন) এর ধারা ৩৮ এর উপ-ধারা (১) এর পর নিম্নরূপ দুইটি নূতন উপ-ধারা (১ক) ও (১খ) সন্নিবেশিত হইবে, যথাঃ

“(১ক) উপ-ধারা (১) এ যাহা কিছুই থাকুক না কেন, ফাইনান্সিয়াল রিপোর্টিং আইন, ২০১৫ এর ধারা ২(৮) এ সংজ্ঞায়িত ‘জনস্বার্থ সংস্থা’ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত কোন ব্যাংকিং কোম্পানীর কর্তব্য হইবে উক্ত আইনের ধারা ৪০ এর বিধান অনুযায়ী প্রণীত ফাইনান্সিয়াল রিপোর্টিং স্ট্যান্ডার্ড এবং অডিটিং স্ট্যান্ডার্ড অনুসারে প্রস্তুতকৃত নিরীক্ষকের প্রতিবেদনসহ প্রয়োজনীয় দলিলাদি উপস্থাপন করা।

(১খ) বাংলাদেশ ব্যাংক এবং জয়েন্ট স্টক কোম্পানীর রেজিস্ট্রার ফাইনান্সিয়াল রিপোর্টিং আইন, ২০১৫ এর ধারা ২(৮) এ সংজ্ঞায়িত ‘জনস্বার্থ সংস্থা’ হিসাবে প্রতিষ্ঠিত কোন প্রতিষ্ঠান কতৃর্ক উপস্থাপিত আর্থিক বিবরণী বা অনুরূপ বিবরণী বা প্রতিবেদন গ্রহণ করিবেন না, যদি না উহা তালিকাভুক্ত নিরীক্ষকের প্রতিবেদনসহ উপস্থাপিত হয়।”।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *